Last update
Loading...

মিরসরাইয়ের অনুদানের টাকায় পোড়া বাড়ীতে উঠছে পাকা ঘর

চলতি বছরের ৫ ফেব্রুয়ারি রান্না ঘর থেকে সৃষ্টঅগ্নিকান্ডে মিরসরাই উপজেলার সৈদালী এলাকায় পুড়ে ছাই হয়ে যায় ৮টি বসত ঘর। আংশিক ক্ষতিগ্রস্ত হয় আরো ৩ পরিবার। সহায় সম্বল হারা মানুষ গুলো যখন খোলা আকাশের নিচে দিনাতিপাত করছিলেন তখন তাদেও পাশে এসে দাঁড়ায় সৈদালী নাগরিক ফোরাম। দিনমজুর শ্রেনীর পরিবারগুলোর মাথা গোজার ঠাই কওে দিতে মানবিক আবেদন করা হয় সংগঠনের পক্ষ থেকে। তাদেও আহবানে সাড়া দেয় দেশে বিদেশে অবস্থানরত বিভিন্ন শ্রেনী পেশার মানুষ। অনুদানের সেই টাকায় এখন সেমিপাকা ঘর উঠছে ক্ষতিগ্রস্তদেও বসতভিটায়। আগুনে সর্বস্বহারা আইয়ুব খান, তাজুল ইসলাম, আবদুল হামিদ খান ভাসানী, ছলিম উল্লাহ ছুলু, আফি উদ্দিন ভূঁইয়া, ইউনুছ ভূঁইয়া, নুরুল আবছার ও খোকনরা আবার স্বপ্ন দেখছে নতুনকরে পথ চলার। সরেজমিন পরিদর্শনে গিয়ে কথা হয় সৈদালী নাগরিক ফোরামের সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আলী জিন্নাহর সাথে। তিনি বলেন, ৫ ফেব্রুয়ারী অগ্নিকান্ডের সময়আমরা সৈদালী নাগরিক ফোরামের উদ্যোগে সৈদালী গনহত্যা দিবসের অনুষ্ঠান আয়োজনের একটি সভা করছিলাম। অগ্নিকান্ডে ক্ষহিগ্রস্তদেও অসহায় অবস্থা দেখে সংগঠনের নেতৃবৃন্দ উদ্যোগ নেয় তাদেও জন্য কিছু করার। তাৎক্ষনিক সদস্যদের থেকে ১৫ হাজার টাকা চাঁদা নিয়ে একটি তহবিল গঠন করি। এরপর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে মানবিক সহযোগীতার আবেদন জানানো হয়। পরবর্তীতে আসতে থাকে একের পর সহযোগীতা।
ঘর নির্মানে রজন্য গৃহায়ন ও গনপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন, মিরসরাই সমিতিইউ এসএইনক এর সভাপতি কাজী আশরাফ হোসেন নয়ন, যুক্তরাষ্ট্র প্রবাসী নাছির এবং কাওসার, ওমান প্রবাসী আবদুর রাজ্জাক, ব্যবাসায়ী নাছিরউদ্দিন, ফরিদ চৌধুরী, যুক্তরাজ্য প্রবাসী মাষ্টার জয়নাল, লায়ন্সক্লাব অব চট্টগ্রাম মিরসরাই, বিভিন œশিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছাত্রছাত্রী, এলাকার সর্বস্তরের জনগনআর্থিক এবং বিভিন্নভাবে সহযোগীতা প্রদান করেন। অনুদানের সেই টাকায় এখন চলছে সেমি পাকা ঘর নির্মানের কাজ। ইতোধ্যে ৭ লাখ টাকা অনুদান সংগ্রহিত হয়েছে। এখনো ৫ লাখ টাকার ঘাটতি রয়েছে। মায়ানী ইউনিয়ন পরিষদেও পক্ষ থেকে অনুদান প্রদানের আশ্বাস দেন চেয়ারম্যান কবির আহম্মদ নিজামী। অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্তই উনুছভূঁইয়া, ছলিম উল্লাহ ভূলু বলেন, আগুন আমাদেও সহায় সম্বল কেড়ে নিয়েছে। সৈদালী নাগরিক ফোরামের উদ্যোগে ক্ষতিগ্রস্ত ৮টি পরিবারকে ২ রুমের সেমিপাকা ঘর নির্মান করে দেওয়া হচ্ছে। এই উদ্যোগের ফলে আমরা আবার নতুন কওে ঘুরে দাড়ানোর পথ খুজে পেয়েছি। সৈদালী নাগরিক ফোরামের সভাপতি অধ্যাপক জসিম উদ্দিন বলেন, অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্তদের ঘর নির্মানে সব শ্রেনী পেশার মানুষ যেখাবে আর্থিকভাবে সহযোগীতা করেছে তা নজিরবিহীন। তিনি ঘরের বাকী কাজ শেষ করতে সকলের সহযোগীতা কামনা করেন।

0 comments:

Post a Comment