Last update
Loading...

প্রথম শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত স্টেডিয়াম

কাতার বিশ্বকাপ শুরু হতে এখনও বাকি প্রায় ২০০০ দিন, আর তার আগেই বিশ্বজুড়ে একের পর এক দৃষ্টান্ত স্থাপন করে চলেছে আয়োজক দেশ কাতার। ২০১৮ রাশিয়া বিশ্বকাপই শুরু হতে এখনও ঢের বাকি। তার আগেই ২০২২ বিশ্বকাপ ফাইনালের মাঠ সম্পূর্ণভাবে সাজিয়ে তুলল কাতার ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন। খলিফা ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়ামকে বিশ্বকাপের জন্য সম্পূর্ণ শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত স্টেডিয়ামে পরিণত করলেন কাতারের ফুটবল কর্তারা। এটিই বিশ্বের প্রথম ফুটবল স্টেডিয়াম, যা সম্পূর্ণ শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত। আধুনিক ও নতুন প্রযুক্তি সঠিকভাবে কাজ করছে কিনা, তা দেখার জন্য কাতার ফুটবলের সর্বাধিক জনপ্রিয় টুর্নামেন্ট দি এমির কাপের ফাইনাল এই স্টেডিয়ামে আয়োজনের উদ্যোগ নিয়েছে স্টেডিয়াম কর্তৃপক্ষ। বৃহস্পতিবার এক ঝটিকা সফরে এ স্টেডিয়ামকে এককথায় অসাধারণ বলে ব্যাখ্যা করেন বার্সেলোনার অন্যতম তারকা ফুটবলার জাভি হার্নান্দেজ। বিশ্বকাপ আয়োজন কমিটির সিনিয়র কর্মকর্তা নাসির আল-কাতের বলেন, ‘আমাদের হৃদয়ের কাছে এই স্টেডিয়াম। স্বভাবতই আমরা খুশি যে, খলিফাকে আমরা প্রস্তুত করতে পেরেছি।’ ১৯৭৬ সালে কাতার সরকার ও কাতার ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের যৌথ উদ্যোগে নির্মিত হয় এ স্টেডিয়াম। ২০২২ বিশ্বকাপের শুধু ফাইনালই নয়, ৪০ হাজার দর্শকাসনবিশিষ্ট এ স্টেডিয়ামে কোয়ার্টার ফাইনালেরও ম্যাচ আয়োজন করা হবে। খলিফা স্টেডিয়ামের মূল রূপকার কাতার বিশ্ববিদ্যালয়ের ঘানি বলেন, ‘এটিই প্রথম কোনো স্টেডিয়াম, যেখানে খোলা আকাশের নিচেও এয়ারকন্ডিশন কাজ করবে।’ নতুন প্রযুক্তির আমদানি করে এই স্টেডিয়ামটি সাজাতে ১০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার খরচ করেছে কাতার। গত ফেব্রুয়ারিতেই কাতারের অর্থমন্ত্রী আলি সারেফ আল ইমাদি জানিয়েছিলেন, স্টেডিয়ামটিকে বিশ্বকাপের জন্য তৈরি করতে প্রতি সপ্তাহে প্রায় ৫০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার খরচ করতে হচ্ছে তাদের। ওয়েবসাইট।

0 comments:

Post a Comment