Last update
Loading...

সম্পূরক শুল্কহার পুনর্বিন্যাস

আগামী ২০১৭-১৮ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে সম্পূরক শুল্কহারে ব্যাপক পরিবর্তন আসছে। যদিও নতুন ভ্যাট আইনে ১৭০টি আমদানি পণ্য ছাড়া ১১৯২ পণ্য থেকে সম্পূরক শুল্ক বিলুপ্তের বিধান রয়েছে। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী দেশীয় শিল্পের সুরক্ষায় সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিয়ে রাজস্ব কাঠামো নির্ধারণের নির্দেশ দিয়েছেন। এ অবস্থায় জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর) ৭ শতাধিক পণ্যে সম্পূরক শুল্কহারে পরিবর্তন আনার প্রস্তাব করেছে। যা অর্থমন্ত্রী অনুমোদন করেছেন। এনবিআরের এ সংক্রান্ত অতিগোপনীয় প্রস্তাব পর্যালোচনায় দেখা গেছে, দেশে যথেষ্ট পরিমাণ উৎপাদন হচ্ছে বা চাহিদার বড় অংশ স্থানীয় বাজার থেকে সরবরাহ হচ্ছে এমন একই জাতীয় পণ্য আমদানি নিরুৎসাহিত করতে বিভিন্ন এইচএস কোডে সম্পূরক শুল্ক বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। পাশাপাশি এমন অনেক পণ্য আছে যা স্থানীয়ভাবে উৎপাদন হলেও সমজাতীয় পণ্য আমদানিতে শুল্ক কমানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। চলতি অর্থবছরের বাজেটে যেসব পণ্যে আমদানি পর্যায়ে সম্পূরক শুল্ক কমানো বা প্রত্যাহার করা হয়েছে, তা সমন্বয়ে বিভিন্ন প্রস্তাব থাকছে। সংশ্লিষ্ট সূত্রমতে, সিসিভেদে বিভিন্ন ধরনের গাড়ির শুল্কহারে পরিবর্তনের প্রস্তাব করা হচ্ছে। এর মধ্যে ১৫০০ সিসির স্ল্যাব ভেঙে ১০০০ সিসির নতুন স্ল্যাব করা হচ্ছে। এই গাড়ির ৩০ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক থাকছে। আগে এসব গাড়ি আমদানিতে ৪৫ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক দিতে হতো।
এ ছাড়া ২০০১ সিসি থেকে ২৭৫০ সিসি পর্যন্ত সম্পূরক শুল্ক ২০০ থেকে ২৫০ শতাংশ বাড়ছে। গণপরিবহনে ব্যবহৃত মাইক্রোবাসের সম্পূরক শুল্ক ৪৫ থেকে ৩০ শতাংশ করা হচ্ছে। দুই স্ট্রোকবিশিষ্ট অটোরিকশা, থ্রি হুইলারের ইঞ্জিন, চার স্ট্রোকবিশিষ্ট অটোরিকশার ওপর ২০-২৫ শতাংশ শুল্ক আরোপ করার প্রস্তাব করা হয়েছে। এ ছাড়া ধূমপান নিরুৎসাহিত করতে সিগারেটের খুচরা মূল্য ও সম্পূরক শুল্কহার বৃদ্ধি করা হচ্ছে। ফিল্টারযুক্ত/ফিল্টার বিযুক্ত বিড়ি খাতে সুনির্দিষ্ট মূল্যের ভিত্তিতে ভ্যাট ও সম্পূরক শুল্ক আদায়ে নতুন একটি সাধারণ আদেশ জারি করা হবে। বিভিন্ন মানের সিগারেটের মূল্যস্তর বাড়ানো হয়েছে। এতে সব ধরনের সিগারেটের দাম বাড়বে। নিন্মমানের সিগারেটের মূল্যস্তর ২৩ টাকা থেকে বাড়িয়ে দেশীয় কোম্পানির ক্ষেত্রে ২৭ টাকা এবং বিদেশী কোম্পানির জন্য ৩৫ টাকা করা হচ্ছে। একই সঙ্গে সম্পূরক শুল্কের পরিমাণ ৫০ শতাংশ থেকে যথাক্রমে ৫২ ও ৫৫ শতাংশ করা হচ্ছে। পাশাপাশি সিসি অনুযায়ী মোটর গাড়ি, মাইক্রোবাস, তৈরি ও বিযুক্ত মোটরসাইকেলসহ নতুন ও ব্যবহৃত যানবাহনে নতুন ভ্যাট আইনে শুল্ক আরোপ করা হচ্ছে। এনার্জি ড্রিংক, কোমল পানীয়, ফলের রস, তামাকযুক্ত সিগারেট, জর্দা, গুল, সিগারেট পেপার, বিভিন্ন প্রসাধন সামগ্রী,
সিরামিক সামগ্রীসহ ৩১টি এইচএস কোডযুক্ত পণ্যে সরবরাহ পর্যায়ে বিভিন্ন হারে সম্পূরক শুল্ক আরোপের প্রস্তাব থাকছে। পাশাপাশি হোটেল ও রেস্তোরাঁ, টেলিফোন, সিমকার্ড (রিপ্লেসমেন্টসহ) সরবরাহকারী, বিদেশী শিল্পীদের বিনোদনমূলক সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজক, স্যাটেলাইট চ্যানেল ডিস্ট্রিবিউটরসহ বিভিন্ন সেবা খাতেও সম্পূরক শুল্ক আরোপের প্রস্তাব করা হচ্ছে। বর্তমানে ব্যাংক হিসাব এবং বিমানের টিকিটে যথাক্রমে সর্বোচ্চ ১৫ হাজার টাকা এবং ১৫শ’ টাকা আবগারি শুল্ক নির্ধারিত আছে। এনবিআরের নতুন প্রস্তাবে ৫ কোটি ১ টাকা থেকে তদূর্ধ্ব পরিমাণের ব্যাংক ডিপোজিটের বিপরীতে ৩০ হাজার টাকা এবং আন্তর্জাতিক বিমান টিকিটের বিপরীতে ৩ হাজার টাকা আবগারি শুল্ক বসানো হচ্ছে। সূত্রমতে, চলতি অর্থবছরে ভ্যাট, স্থানীয় পর্যায়ে সম্পূরক শুল্ক, আবগারি শুল্ক এবং টার্নওভার কর আদায়ের সংশোধিত লক্ষ্যমাত্রা হচ্ছে ৬৬ হাজার কোটি টাকা। প্রস্তাবিত বাজেটে এ খাত থেকে আয় ধরা হচ্ছে ৮৭ হাজার ৮৮৭ কোটি টাকা। যা চলতি বছরের তুলনায় ৩৩ দশমিক ১৬ শতাংশ বেশি। এ লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে নতুন ভ্যাট ও সম্পূরক শুল্ক আইন ২০১২-এর ব্যাপক পরিবর্তন এবং সংশোধন করা হচ্ছে।
সম্পূরক শুল্ক বাড়ছে : বিভিন্ন ধরনের কাপড় বিশেষ করে পাইল ফেব্রিক্স টেরি ফেব্রিক্স, নিট, অন্যান্য নিটে ২০-২৫ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক আরোপ হচ্ছে। ট্র্যাক স্যুট ও অন্যান্য গার্মেন্ট, সব ধরনের পশমি কম্বল, বেড লিনেন, পর্দা, কৃত্রিম ফুলজাতীয় পণ্য সিরামিকের ইট, টাইলস সিরামিক পাইপের ওপর ২০ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ২৫ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক করা হচ্ছে। এ ছাড়া গ্লাস টিউব, রোল গ্লাস, রোল গ্লাস নন-ওয়ার্ডশিট, ড্রন গ্লাস, অন্যান্য নিরাপত্তাজনিত গ্লাস, ফ্রেমবিহীন ও ফ্রেমযুক্ত অন্যান্য কাচের আয়না, ইট, ইমিটেশন জুয়েলারি, অ্যাঙ্গেল, কাস্ট আয়রনের টিউব পাইপ, গ্যাস পাইপে ব্যবহৃত লাইন পাইপ, স্টিলের তৈরি অন্যান্য টিউব, গ্যাস লাইনের ব্যবহার উপযোগী রান্নার তৈজসপত্র, পেপার বোর্ড, পেপার ২০ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে সম্পূরক শুল্ক ২৫ শতাংশ করা হচ্ছে। বিদ্যমান আইনে সম্পূরক শুল্ক ২০ শতাংশ আছে। কিন্তু আগামী বাজেটে ২৫ শতাংশ শুল্ক আরোপ করা হচ্ছে এমন সব পণ্যের মধ্যে রয়েছে ফিল্টার, বিদ্যুতের ট্রান্সফর্মার, ব্যাটারি, কয়েন, ব্যাংক নোট, ব্যাংক কার্ড, সাউন্ড রেকর্ডিং, ভিডিও রেকর্ডিং, রঙ্গিন টেলিভিশন, টিভি কার্ডসহ যন্ত্রাংশ, অন্যান্য সুইচ, প্লাগ, সিম কার্ড, ইঞ্জিনসহ অটোরিকশা, থ্রি-হুইলার, ফোর স্ট্রোকবিশিষ্ট সিএনজি, ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা, ইলেকট্রিক ব্যাটারিচালিত মোটর গাড়ি, বাইসাইকেল, মোটরসাইকেল ফুয়েল ট্যাংক, সাইকেলের চাকার রিম, আসবাবপত্র ও যন্ত্রাংশ।বিদ্যমান আইনে ৪৫ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে সম্পূরক শুল্ক ৫০ শতাংশ করা হচ্ছে এমন পণ্য হচ্ছে পুরুষ, মহিলা ও শিশুদের সব ধরনের তৈরি পোশাক, ওভারকোট, কার কোট কেইপ, উইন জ্যাকেট, ছেলেদের স্যুট, ব্লেজার, জ্যাকেট, ব্রিচ, ব্রেস ওভারসল, মেয়েদের স্যুট, ড্রেস, স্কার্ট, অ্যানোর‌্যাক, ট্রাউজার, ছেলেদের শার্ট, মেয়েদের ব্লাউজ, শার্ট, শার্ট ব্লাউজ, নিটেড, নাইট শার্ট, পায়জামা, ড্রেসিং গাউন, মেয়েদের স্লিপ, পেটিকোট, ব্রিফ, জার্সি, কার্ডিগান, শিশুদের গার্মেন্ট ও ক্লোদিং এক্সেসরিজ, নিটেড, অন্যান্য গার্মেন্ট প্যান্টি হোমস, টাইপস, স্টকিংস, অন্যান্য হোসিয়ারি, গ্লাভস, মিটেনস, মিটস, গার্মেন্ট বা ক্লোদিং এক্সসরিজের অংশ। এ ছাড়া ব্রেসিয়ার, গার্ডল, করসেট, ব্রেস, সাস পেন্ডার, গার্টার, মাফলার, বিদেশি জুতা, সোল, প্লাস্টিক জুতা, সিনথেটিক চামড়া, অন্যান্য ফুটওয়্যার ফ্লোট গলাস, এনার্জি সেভিং ল্যাম্প সেনিটারি টাওয়েলের ওপর ৪৫ থেকে বাড়িয়ে ৫০ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক আরোপ করা হচ্ছে।
সম্পূরক শুল্ক কমছে : আগামী অর্থবছরের বাজেটে কিছু পণ্যের সম্পূরক শুল্কহার কমানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। এর মধ্যে ৬০ শতাংশ থেকে নামিয়ে ৫০ শতাংশ করা হচ্ছে এমন পণ্যগুলো হচ্ছে- পাথর, মার্বেল পাথর, অনুজ্জ্বল সিরামিক প্রস্তর ফলক, দেয়ালের টাইলস, অনুজ্জ্বল সিরামিক মোজাইক, উজ্জ্বল সিরামিক প্রস্তর ফলক, চকচকে সিরামিক, ওয়াশ বেসিন, চিনামাটির তৈরি টেবিল ওয়্যার, কিচেন ওয়্যার, সিরামিকের তৈরি টেবিল, অন্যান্য সিরামিক সামগ্রী, মসৃণ হীরা, ভ্যাট রেজিস্টার্ড এয়ার কন্ডিশনার প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান কর্তৃক আমদানিকৃত এবং অন্যান্য আমদানিকারক কর্তৃক আমদানিকৃত পণ্য। এ ছাড়া গ্লাস বেড, স্মার্টকার্ড, সাউন্ড রেকর্ডিং উৎপাদনের যন্ত্রাংশ, ইন্ডিকেটর পাইলট ল্যাম্প, ল্যাম্প কার্বন, ব্যাটারি কার্বন, প্লেয়িং কার্ড ১০ শতাংশ কমিয়ে শূন্য শতাংশ করা হয়েছে। এ ছাড়া রেফ্রিজারেটর, ফ্রিজার, হিট পাম্প রেফ্রিজারেটিং ফার্নিচার, দ্বিকক্ষবিশিষ্ট বৈদ্যুতিক পরিবাহী, ভারি মোটরযান ৩০ শতাংশ থেকে কমিয়ে ২৫ শতাংশ করা হয়েছে সম্পূরক শুল্ক। ১২৫ ওয়াট বা তার নিচের মোটরযুক্ত টেবিল, ফ্লোর ওয়াল সিলিং, জানালা ও ছাদের ফ্যান ৪৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে ২৫ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক আরোপ করা হচ্ছে।
গাড়ির শুল্কহার : ১০০০ সিসি সিলিন্ডার ক্যাপাসিটির গাড়িতে ৩০ শতাংশ, ১৫০০ সিসি পর্যন্ত ৪৫ শতাংশ, ১৫০১ থেকে ২০০০ হাজার সিসি পর্যন্ত ১শ’ শতাংশ, ২০০১ থেকে ২৭৫০ সিসি পর্যন্ত ২৫০ শতাংশ, ২৭৫১ থেকে ৪০০০ সিসি পর্যন্ত ৩৫০ শতাংশ এবং এর ঊর্ধ্ব সিসির জন্য ৫০০ শতাংশ সম্পূরক শুল্ক আরোপ করা হচ্ছে। এ ছাড়া ১৮০০ সিসি মাইক্রোবাসে ৪৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে ৩০ শতাংশ, ১৮০১ সিসি থেকে ২০০০ সিসি পর্যন্ত মাইক্রোবাসে ৬০ শতাংশ, ফোর স্ট্রোকবিশিষ্ট সম্পূর্ণ তৈরি মোটরসাইকেল ৬০ শতাংশ থেকে কমিয়ে ৪৫ শতাংশ, ফোর স্ট্রোকবিশিষ্ট বিযুক্ত মোটরসাইকেল ৪৫ শতাংশ থেকে কমিয়ে ৩০ শতাংশ করা হচ্ছে।

0 comments:

Post a Comment