Last update
Loading...

অভিযুক্ত সাফাতকে নিয়ে গোলাপগঞ্জে তোলপাড়

বনানীতে ধর্ষণের ঘটনায় আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদার আহমদ সেলিমের পুত্র সাফাত আহমদকে নিয়ে সিলেটের গোলাপগঞ্জে চলছে তোলপাড়। ধর্ষণের ঘটনায় গ্রেফতারের পর তার মুখোশ উন্মোচিত হয়েছে। এ ছাড়া উপজেলার সর্বত্রই তাকে ঘিরে এখন নানা প্রশ্ন। কে সেই সাফাত? কী তার আসল পরিচয়? এমন প্রশ্ন মানুষের মুখে মুখে। আপন জুয়েলার্সের মালিকের বাড়ি এ উপজেলায় হলেও তা অনেকের কাছে দীর্ঘ দিন অজানা ছিল। এমনকি তার নিজ এলাকা উপজেলার ঢাকাদক্ষিণের নগর গ্রামের অনেকেই তাদের ভালো মতো চেনে না। স্থানীয় সূত্র জানায়, এলাকার মানুষকে তারা সব সময় এড়িয়ে চলত। মাঝে মধ্যে বাড়ি আসা-যাওয়া করলেও লোকজন টের পেত না। কিন্তু হঠাৎ করেই গত পাঁচ-ছয় বছর এলাকার লোকদের সঙ্গে যোগাযোগ বাড়িয়ে দেয় সাফাত ও পরিবারের লোকজন। ধর্ষণের ঘটনা জানাজানি হওয়ার পর অনেকেই বলছেন,
হঠাৎ করে এলাকার লোকদের সঙ্গে সখ্য গড়ে তুলে তারা আপনজন হওয়ার চেষ্টা করে। অসহায় লোকদের মধ্যে দান-খয়রাত করার কারণে তারা মনে করতেন সাফাত ভালো মানুষ। কিন্তু ধর্ষণের ঘটনায় সাফাত জড়িত থাকা ও তার বাবা দিলদার আহমদ সেলিম ঘটনার পর মিডিয়ায় ‘জোয়ান পোলা একটু আধটুতো করবই, আমিও করি’ এমন বক্তব্য দেয়ার পর তাদের মুখোশ খুলে যায়। বর্তমানে এলাকার লোকজন শুধু ‘ছি... ছি...’ করছে এ ঘটনায়। এলাকার কেউ তাদের এ অপকর্ম মেনে নিতে পারছে না। লোকজন বলছে, ঘটনা প্রমাণিত হলে তাদের এলাকায় অবাঞ্ছিত ঘোষণা করা হবে। এদের কারণে গোটা এলাকা লজ্জায় পড়েছে- এমন মন্তব্য অনেকেরই। তাদের দাবি দোষীদের যেন সর্বোচ্চ শাস্তি হয়। জানা গেছে, ধর্ষণের ন্যক্কারজনক ঘটনার পর দেশের অন্য এলাকার লোকজনদের মতো অভিযুক্ত সাফাত আহমদের গ্রামের লোকজনও হতবাক, বিস্মিত। কেউ প্রকাশ্যে কিছু না বললেও তাদের অন্তরে সাফাতের পরিবারের প্রতি বাড়ছে কেবল ঘৃণা ও ক্ষোভ।

0 comments:

Post a Comment