Last update
Loading...

শের-ই বাংলা শাইটিং পার্সোনালিটি অ্যাওয়ার্ড পেলেন সাংবাদিক গোলাম কিবরিয়া

সাংবাদিকতায় বিশেষ অবদানের স্বীকৃতিস্বরূপ শের-ই বাংলা এ কে ফজলুল হক শাইটিং পার্সোনালিটি অ্যাওয়ার্ড-২০১৭-এ বরিশাল বিভাগীয় সেরার পুরস্কার পেলেন দৈনিক নয়া দিগন্ত পত্রিকার বরগুনা জেলা সংবাদদাতা গোলাম কিবরিয়া। অন্যদিকে বরগুনা জেলা সেরা সাংবাদিক হিসেবে এ শাইটিং পার্সোনালিটি অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন দৈনিক আমার সময় জেলা প্রতিনিধি মো: শফিকুল ইসলাম ইরান। গতকাল সোমবার রাত সাড়ে ৭টায় সুপ্রিম কোর্ট বার অ্যাসোসিয়েশনের ভিআইপি হলরুমে এ শাইটিং অ্যাওয়ার্ড বিতরণ, আলোচনা সভা ও সনদ বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়। সাংবাদিক গোলাম কিবরিয়া ও ইরানকে সম্মাননা পদক তুলে দেন বিচারপতি মো: সিদ্দিকুর রহমান মিয়া। শের-ই বাংলার ৫৫তম মৃত্যুবার্ষীকি উপলক্ষে এ অনুষ্ঠানটির আয়োজন করেন শের-ই বাংলা এ কে ফজলুল হক গবেষণা পরিষদ। এসময় শিক্ষক, আইনজীবী, সমাজসেবক, রাজনৈতিক নেতা, সুশীলসমাজ ও অন্যান্য গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন। পরে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান হয়। অনুষ্ঠান শেষে বিচারপতি সিদ্দিকুর রহমান গৌরবময় কৃতিত্বের স্বীকৃতিস্বরূপ একটি প্রশংসাপত্রও হাতে তুলে দেন। এসময় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামন্ডলির সদস্য ও বার কাউন্সিলের ভাইস-চেয়ারম্যান অ্যাড. আবদুল বাসেত মজুমদার, আইন,
বিচার সংসদ সম্পর্কিত সংসদীয় কমিটির সদস্য অ্যাড. তালুকদার মো: ইউনুস, বিটিআরসির চেয়ারম্যান ও সাবেক তথ্য সচিব সৈয়দ মার্গুব মোর্শেদ, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব এ এস মাহমুদ, অর্থ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব পীরজাদা শহিদুল হারুন প্রমুখ। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন শের-ই বাংলা গবেষনা পরিষদের মহাসচির আর কে রিপন। সাংবাদিক গোলাম কিবরিয়ার জন্ম ১৯৮৮ সালের ৭ই জানুয়ারি বরগুনা জেলার বামনা উপজেলা শহরের পশ্চিম সফিপুরের এক মুসলিম পরিবারে। পিতা মরহুম হাফেজ মাওলানা মুহা: আবুল কালাম আজাদ, মাতা মোসা: রাহিমা আজাদ। ২০০১ সালে তিনি নবম শ্রেনিতে অধ্যায়নরত অবস্থায় বরিশাল থেকে প্রকাশিত দৈনিক দক্ষিণাঞ্চল পত্রিকার তার সাংবাদিকতার হাতেখড়ি। এর পরে তিনি বিভিন্ন জাতীয় পত্রিকা ও দিগন্ত টেলিভিশনে সাংবাদিকতা করেন। বর্তমানে তিনি দৈনিক নয়া দিগন্ত ও ইংরেজী দৈনিক ডেইলি পিপলস্ টাইম পত্রিকায় জেলা প্রতিনিধি হিসেবে কর্মরত আছেন। সাংবাদিক গোলাম কিবরিয়া একাধিক সাংবাদিক সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ছিলেন। তিনি প্রথমে দৈনিক নয়া দিগন্ত পত্রিকার বামনা উপজেলা সংবাদদাতা থাকাকালীন ২০০৬ সালে বামনা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হন। এরপর ২০১০ সালে জেলা সংবাদদাতা হিসেবে নিয়োগ পাওয়ার পর বরগুনায় মানবাধিকার সাংবাদিক সংস্থা, জাতীয় সাংবাদিক সংস্থা, সাংবাদিক ইউনিয়ন, জেলা প্রেসক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য ও বিভিন্ন পদে দায়িত্ব পালন করেন। বর্তমানে বরগুনা জেলা সাংবাদিক ফোরামের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।

0 comments:

Post a Comment