Last update
Loading...

সরকারের কাছে ব্যাখ্যা চাওয়া হবে

দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার গুলশানের কার্যালয়ে পুলিশি তল্লাশির প্রতিবাদে ২৪ মে বুধবার রাজধানীতে সমাবেশ করবে বিএনপি। একই সঙ্গে কেন তল্লাশি চালানো হয়েছে সরকারের কাছে তার ব্যাখ্যা চাওয়া হবে। রোববার রাতে দলের স্থায়ী কমিটির বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত হয়। আজ এ বিষয়ে সংবাদ সম্মেলন করবে বিএনপি। গুলশানে নিজ কার্যালয়ে পুলিশি অভিযানের পরিপ্রেক্ষিতে দলের নীতিনির্ধারণী ফোরাম জাতীয় স্থায়ী কমিটির সঙ্গে বৈঠক করেন খালেদা জিয়া। কার্যালয়ের নিচতলায় বৈঠক হয়। বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, দলের শীর্ষ নেতারা খালেদার জিয়ার কার্যালয়ে তল্লাশির ঘটনাকে সরকারের ষড়যন্ত্র বলে উল্লেখ করেন। তারা এর নিন্দা জানান। বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, আগামী ২৪ মে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে তল্লাশির প্রতিবাদে সমাবেশ হবে। সমাবেশের অনুমতি না দিলে সারা দেশে মুখে কালো কাপড় বেঁধে বিক্ষোভ কর্মসূচি দেয়া হবে। খালেদা জিয়ার সভাপতিত্বে বৈঠকে স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার, তরিকুল ইসলাম, রফিকুল ইসলাম মিয়া, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়,
নজরুল ইসলাম খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী ও মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর উপস্থিত ছিলেন। সূত্র জানায়, দলের চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার গুলশানের কার্যালয়ে তল্লাশির প্রতিবাদে নেতাকর্মীদের রাজপথে থাকার পক্ষে মত দেন সিনিয়র নেতারা। তারা বলেন, সরকার এ ঘটনায় অনেকটা বিব্রত ও ব্যাকফুটে রয়েছে। তাই আমাদের আরও সক্রিয় ভূমিকা পালন করতে হবে। তৃণমূলকে এ ইস্যুতে বিক্ষোভ, সমাবেশসহ নানা কর্মসূচি অব্যাহত রাখতে হবে। বৈঠক সূত্র আরও জানায়, সরকার হঠাৎ করে এমন সিদ্ধান্ত কেন নিয়েছে তার সঠিক কারণ জানা উচিত বলে এক নেতা মত দেন। বেশির ভাগ নেতা বলেন, সরকার দিন দিন নার্ভাস হয়ে পড়ছে। নার্ভাসের কারণেই হয়তো এমনটা করেছে। এর আগে রোববার দুপুরে নয়া পল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দলের যুগ্ম-মহাসচিব ও সাংগঠনিক সম্পাদকদের নিয়ে বৈঠক করেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। ওই বৈঠকে দলের করণীয় নিয়ে নেতাদের মতামত নেয়া হয়। বৈঠকে উপস্থিত একাধিক নেতা যুগান্তরকে বলেন, গুলশানে ন্যক্কারজনক ঘটনায় সরকারই উল্টো চাপে আছে। তাই এই মুহূর্তে নেতাকর্মীদের মাঠে রাখতে কর্মসূচি দেয়া প্রয়োজন।

0 comments:

Post a Comment