Last update
Loading...

রাজশাহীতে জঙ্গিদের হামলায় আহত দমকলকর্মীর মৃত্যু

রাজশাহীর গোদাগাড়ীতে ‘জঙ্গি আস্তানায়’ অভিযানকালে জঙ্গিদের হামলায় আহত ফায়ার সার্ভিসের কর্মী আবদুল মতিন মারা গেছেন। বৃহস্পতিবার সকাল ৯টার দিকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (রামেক) চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। পুলিশের এই অভিযানে এক নারীসহ ৪ জঙ্গি নিহত হয়েছেন। গোদাগাড়ী থানার ওসি হিবজুর আলম মুন্সি যুগান্তরকে এসব তথ্য দেন। তিনি জানান, ঘিরে রাখা বাড়িতে সকাল ৭টা ৫০ মিনিটের দিকে ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা পানি নিক্ষেপ করে। এ সময় একযোগে নারী ও শিশুসহ ৬ জঙ্গি বাড়ি থেকে বের হয়ে আসে। এদের মধ্যে কয়েকজন শাবলসহ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে ফায়ার সার্ভিসের কর্মী আবদুল মতিনের ওপর হামলা করে। তারা শাবল দিয়ে খুঁচিয়ে মতিনকে গুরুতর জখম করে। পরে তাকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মতিনের মৃত্যু হয়।
ওসি আরও জানান, এরপর সেখানে জঙ্গিদের সঙ্গে পুলিশের গোলাগুলি হয়। এক পর্যায়ে তারা আত্মঘাতী বিস্ফোরণ ঘটায়। এতে নারীসহ ৪ জঙ্গির মৃত্যু হয়। এ সময় বোমার স্প্লিন্টারের আঘাতে উৎপল নামে পুলিশের এক কনস্টেবলও আহত হন বলে জানান ওসি। এর আগে গোপন তথ্যের ভিত্তিতে বুধবার দিনগত রাত পৌনে ২টা থেকে সাজ্জাদ ওরফে মিষ্টুর বাড়িটি ঘিরে রাখে পুলিশ। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, রাজশাহী-চাঁপাইনবাবগঞ্জ মহাসড়কের গোদাগাড়ীর রেলগেট বাইপাস থেকে উত্তরে ৭ কিলোমিটার দূরে বেনীপুরে বাড়িটির মালিক সাজ্জাদ হোসেন ওরফে মিষ্টু। আগে তার বাড়ি ছিল একই ইউনিয়নের হাবাসপুরে। তিনি সম্প্রতি বেনীপুরে গিয়ে বাড়িটি করে সেখানে বসবাস করছেন। কৃষক মিষ্টুর বাবার নাম মৃত আব্দুর মাতিন বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে।

0 comments:

Post a Comment