Last update
Loading...

পোর্টল্যান্ডের সেই যুবক পাচ্ছেন বীরের মর্যাদা

যুক্তরাষ্ট্রের পোর্টল্যান্ডে কমিউটার ট্রেনে দুই মুসলিম তরুণীকে হয়রানির হাত থেকে বাঁচাতে গিয়ে মুসলিমবিদ্বেষী এক ব্যক্তির ছুরিকাঘাতে নিহত প্রতিবাদকারীরা এখন বীরের মর্যাদা পাচ্ছেন। শুক্রবারের ওই ঘটনায় দু’জন নিহত হন। এদের মধ্যে একজনের মা বলেন, সে ছিল একজন হিরো এবং সে হিরো হয়েই থাকবে। ওরিগন রাজ্যের পোর্টল্যান্ডের এ ঘটনায় ২৩ বছরের তরুণ তালিয়েসিন মিরদিন নামকাই মেচে এবং রিকি জন বেস্ট নামের দুই ব্যক্তি ছুরিকাঘাতে নিহত হন। ৫৩ বছর বয়সী জন বেস্ট একজন সেনা সদস্য ও চার সন্তানের জনক। এ ঘটনায় ২১ বছরের মিকাহ ডেভিড-কোল ফ্লেচার নামে আরও একজন ব্যক্তি আহত হন। তার অবস্থা আশঙ্কামুক্ত বলে জানিয়েছে পুলিশ। সাউথইস্ট পোর্টল্যান্ডের বাসিন্দা তালিয়েসিনের মৃত্যু হয় হাসপাতালে নেয়ার পর। অর্থনীতিতে ডিগ্রি নেয়ার পর তিনি একটি কোম্পানিতে ইন্টার্নশিপ করছিলেন। প্রত্যক্ষদর্শীদের বরাতে বিবিসি জানায়, শুক্রবার বিকালে একসঙ্গে দুই তরুণী ওই ট্রেনে ওঠেন; তাদের মধ্যে একজনের মাথা হিজাবে ঢাকা ছিল। তাদের দেখার পর ওই ট্রেনের যাত্রী জোসেফ ইসলামবিদ্বেষী মন্তব্য করতে শুরু করেন। দুই তরুণীর মধ্যে একজনের মা ডিজুয়ানা হাডসন বলেন, সে বলছিল, সব মুসলমানের মরে যাওয়া উচিত।’ পুলিশ সার্জেন্ট পিট সিম্পসন বলেন, গ্রেফতার ওই ব্যক্তি এমন সব কথা বলছিল, যা ‘বিদ্বেষমূলক মন্তব্যের’ পর্যায়ে পড়ে। ওই সময় তিন যাত্রী ওই দুই তরুণীর পক্ষে দাঁড়ান। তাদের একজন জোসেফকে বলেন, এই ভাষায় কথা বলা তার উচিত হচ্ছে না। তাতে ক্ষুব্ধ হয়ে জোসেফ ছুরি নিয়ে তাদের ওপর চড়াও হন। নিহত তরুণ তালিয়েসনের মা ফেসবুকে লিখেছেন, ‘সে ছিল একজন হিরো এবং মৃত্যুর পরও সে হিরো হয়েই থাকবে। উজ্জ্বল দ্যুতি ছড়ানো তারকা আমার ছেলে, আমি তোমাকে সবসময় ভালোবাসি।’

0 comments:

Post a Comment