Last update
Loading...

আইপিএলে প্রথবারেই রশিদের চমক

যুদ্ধবিধ্বস্ত আফগানিস্তানের জালালাবাদ থেকে উঠে এসে বল হাতে দশম আইপিএল মাতাচ্ছেন আফগান লেগ স্পিনার রশিদ খান। মাত্র দুই ম্যাচে নিজে রশিদ এতটাই উপরে নিয়ে গেছেন যে, টুর্নামেন্টের পার্পল ক্যাপও তার মাথায় শোভা পাচ্ছে এই মুহূর্তে। পাক-আফগান সীমান্ত প্রদেশ নঙ্গরহর-এর পাশতুন ব্যবসায়ী পরিবারে জন্ম রশিদের। পাকিস্তানের শহীদ আফ্রিদির ভক্ত রশিদ খান বছর সাত আগে মহল্লার গলিতে ভাইয়ের সঙ্গে টেনিস বলে ক্রিকেট খেলছিলেন। টিভিতে তখন চলছিল টি ২০ বিশ্বকাপে আফগানিস্তানের ম্যাচ। তা দেখেই রশিদ ঠিক করে নেন তাকেও একদিন দেশের হয়ে খেলতে হবে। যেই ভাবা সেই কাজ। রশিদের নিজের কথায়, ‌'মাঠ, পরিকাঠামো ঠিকঠাক পাইনি। কিন্তু পরিশ্রমে খামতি রাখিনি। তাই এই জায়গায় আসতে পেরেছি।' ফেব্রুয়ারিতে আইপিএল নিলামে তাকে চার কোটি টাকায় তুলে নিয়েছিলেন সানরাইজার্স হায়দরাবাদের কোচ টম মুডি। মুডির যুক্তি ছিল, ‌'চাপের মুখে মাথা ঠান্ডা রেখে ছেলেটা বল করতে পারে। ব্যাটসম্যানকে চাপে রাখে।' প্রথমবার আইপিএলে খেলতে নেমে বল হাতে তা করেও দেখাচ্ছেন রশিদ। প্রথম ম্যাচে রয়্যাল চালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের বিরুদ্ধে দুই উইকেট নেন। এরপর গতকাল রোববার গুজরাট লায়ন্সের বিরুদ্ধে রশিদের শিকার ৩ উইকেট, যার মধ্যে রয়েছেন ব্রেন্ডন ম্যাকালাম, সুরেশ রায়না এবং অ্যারন ফিঞ্চ।
বাইশ গজে রশিদের লেগস্পিনের ঘূর্ণি সামলাতে গিয়ে তিনজনেই এলবিডব্লিউ হন। তার চেয়েও চমকপ্রদ গুজরাট লায়ন্সের বিরুদ্ধে রশিদের বোলিং বিশ্লেষণ, ৪-০-১৯-৩। সবচেয়ে মজার বিষয় চার ওভঅরে রশিদ ১১টি বলই করেছেন 'ডট'। এছাড়া ধবল কুলকার্নিকে মোক্ষম সময়ে রানআউটও করেন তিনি। গুজরাটকে সাত উইকেটে ১৩৫ রানের মধ্যে আটকে রাখার নায়ক প্যাভিলিয়নে ফেরার পথে সম্প্রচারকারী চ্যানেলে বলেও গেলেন, ‌'আইপিএলে পার্পল ক্যাপ পাওয়াটা জীবনের অন্যতম সেরা মুহূর্ত। আশা করছি টুর্নামেন্টের শেষেও টুপিটা নিজের কাছে রেখে দিতে পারব।' আফগানি এ তরুণ তুর্কি বলেন, 'জানি, আমার বোলিং খেলতে ব্যাটসম্যানদের সমস্যা হচ্ছে। এই পিচে উইকেট টু উইকেট বল করে গেলে ব্যাটসম্যানদের সমস্যা হবেই। আমি সব সময়েই চেষ্টা করি ‘ডট বল’ করে ব্যাটসম্যানদের চাপে রাখতে।' গুগলি, লেগব্রেকের সঙ্গে ক্রিজটাও চমৎকার ব্যবহার করেন রশিদ। সম্প্রতি আয়ার্ল্যান্ডের বিরুদ্ধে টি ২০ ম্যাচে দুই ওভারে পাঁচ রানে তিন উইকেট নিয়ে সাড়া ফেলে দিয়েছিলেন। সানরাইজার্সের বোলিং পরামর্শদাতা মুরলিধরনের টিপস নিজের ঝুলিতে যতটা পারেন ঢুকিয়ে নিতে চান। একই সঙ্গে ব্যাটিংটাও ঝকঝকে করতে ভিভিএস লক্ষ্মণ এবং টম মুডির থেকে দেদার পরামর্শ নিচ্ছেন।

0 comments:

Post a Comment