Last update
Loading...

যোগীর রাজ্যেই ধুঁকে ধুঁকে মরল দেড়শ’ গরু

ভারতে যখন গোরক্ষার নামে তাণ্ডব চলছে, বিভিন্নস্থানে মুসলিম নাগরিকদের পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠছে তখনই গরুর প্রতি অযত্ন অবহেলার এক করুণ চিত্র দেখা গেছে। উত্তরপ্রদেশের কানপুরের ১২৮ বছরের পুরনো এক গোশালায় অনাহার ও অপুষ্টিতে গত পাঁচ মাসে ১৫২টি গরু মারা গেছে। সম্প্রতি উত্তরপ্রদেশে হিন্দুত্ববাদী দল বিজেপির জয়ের পর যোগী আদিত্যনাথকে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী করা হয়েছে। ক্ষমতা গ্রহণের পরপরই তিনি গরু জবাই কার্যত নিষিদ্ধ করেন। হিন্দুস্তান টাইমস জানায়, দেশটির অন্যতম বৃহৎ এ গরু আশ্রয় কেন্দ্রে প্রায় ৫৪০টি গরু রয়েছে। রাস্তা থেকে অসুস্থ গরু উদ্ধার করে এখানে নিয়ে এসে দেখাশোনা করা হয়। গরুগুলোর দেখভালের জন্য একটি সোসাইটি রয়েছে। এই সোসাইটির অধীনে প্রায় ২২০ কোটি টাকার সম্পত্তি রয়েছে।
অভিযোগ উঠেছে, সোসাইটির অবহেলার কারণে গরু মারা যাচ্ছে। গত সপ্তাহেই ৪টি গরু মারা গেছে। ডাক্তাররা বলছেন, গরুগুলো না খেতে পেয়ে মারা গেছে। অযত্ন-অবহেলায় গরুর মৃত্যুতে স্থানীয়দের মধ্যে ক্ষোভ-উত্তেজনা বিরাজ করছে। সোসাইটির একজন প্রবীণ সদস্য জানান, ‘গরুদের দেখাশোনার জন্য প্রচুর অর্থ আসে এই সোসাইটিতে। অথচ এত টাকা আসা সত্ত্বেও গরুগুলোকে ঠিকমতো খেতে দেয়া হয় না। তাহলে এই টাকা যায় কোথায়? এটা তদন্ত করে দেখা দরকার।’ তবে এই অভিযোগকে উড়িয়ে দিয়েছেন সোসাইটির জেনারেল সেক্রেটারি শ্যামজি অরোরা। তিনি জানান, প্রতিদিনই ডাক্তার আসেন গরুগুলো দেখতে। তা ছাড়া গরু দেখাশোনার জন্য আটজনের একটি বিশেষ দল রয়েছে। এতকিছু সত্ত্বেও এতগুলো গরুর মৃত্যু কিভাবে হল তা খতিয়ে দেখা হবে বলে জানান তিনি।

0 comments:

Post a Comment